এরদোগান পরিবারের বিরুদ্ধে অর্থ পাচারের সত্যতা পাওয়া যায়নি

তুরস্কের সংবাদ

তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগানের পরিবারের বিরুদ্ধে অফশোর কোম্পানিতে অর্থ পাচারের অভিযোগের কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি। ফলে বিষয়টি নিয়ে আর অগ্রসর না হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আঙ্কারার প্রধান প্রসিকিউটর কার্যালয়।

রবিবার রাষ্ট্র পরিচালিত আনাদুলো এজেন্সির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

দেশটির প্রধান বিরোধী রিপাবলিকান পিপলস পার্টির (সিএইচপি) তরফ থেকে অভিযোগ করা হয়েছিল যে, এরদোগানের ঘনিষ্ঠ আত্মীয়রা বিদেশি অফশোর কোম্পানিতে হাজার হাজার ডলার পাচার করেছেন। অভিযুক্তদের মধ্যে ছিল এরদোগানের ভাই, তার ছেলে এবং তার নির্বাহী সহকারী।

সিএইচপি’র প্রধান কেমাল কিলিকডারগ্লু’র অভিযোগের ভিত্তিতে তার কাছ থেকে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট চাওয়া হয়। তার দেয়া ব্যাংকিং ডকুমেন্টসমূহের সত্যতা যাচাই করে আঙ্কারার প্রধান প্রসিকিউটর কার্যালয়। প্রয়োজনীয় যাচাই শেষে প্রসিকিউটর কার্যালয় থেকে বলা হয়েছে যে, প্রাসঙ্গিক লেনদেন মানি লন্ডারিং অপরাধের অংশ নয়।

কেমাল কিলিকডারগ্লু’র অভিযোগে বলা হয়েছিল যে, অভিযুক্ত পাঁচজন ট্যাক্স হ্যাভেন ‘আইল অফ ম্যান’ এর মাধ্যমে একটি অফশোর কোম্পানির একাউন্টে ১৫ মিলিয়ন ডলার লেনদেন করেছেন।

এক বিবৃতিতে প্রসিকিউটর কার্যালয় থেকে বলা হয়, ‘দুর্নীতির মাধ্যমে ‘বেলওয়ে’ কোম্পানির কাছে অর্থ স্থানান্তরের পক্ষে জোড়ালো কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।’

মানি লন্ডারিং এর অভিযোগের কোনো প্রমাণ না থাকায় এই বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া অপ্রয়োজনীয় বলে বিবৃতিতে বলা হয়।

আরো পড়ুন…
তুর্কি প্রজাতন্ত্র অটোমান সাম্রাজ্যের একটি ধারাবাহিকতা: এরদোগান
তুরস্ক প্রজাতন্ত্র অটোমান সাম্রাজ্যের একটি ধারাবাহিকতা বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান।

অটোমান সুলতান দ্বিতীয় আব্দুল হামিদের মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে শনিবার ইস্তাম্বুলের ইলদিজ প্রাসাদে অনুষ্ঠিত সভায় এরদোগান এই মন্তব্য করেন।

স্মরণ সভায় এরদোগান বলেন, ‘তুর্কি প্রজাতন্ত্র আমাদের পূর্ববর্তী রাজ্যগুলোর মতোই একে অন্যের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছে। এটি একই সঙ্গে অটোমান সাম্রাজ্যের একটি ধারাবাহিকতাও বটে।’

তিনি বলেন, ‘যদিও আমাদের সীমান্ত পাল্টে গেছে। সরকারের ধরনও পরিবর্তন হয়েছে … কিন্তু আমাদের নির্যাস একই, আত্মা একই, এমনকি অনেক প্রতিষ্ঠানও একই রয়ে গেছে।’

এরদোগান আরো বলেন, ‘তুর্কি সাম্রাজ্যের ১৫০ বছরের ইতিহাসে সুলতান আব্দুল হামিদ হচ্ছেন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, সর্বাধিক দূরদর্শী ও কৌশলগত মনস্তাত্ত্বিক ব্যক্তিত্ব।’

দ্বিতীয় সুলতান আব্দুল হামিদ ছিলেন অটোমান সাম্রাজ্যের ৩৪তম সুলতান। তিনি ছিলেন সুলতান আব্দুল মাকিদের পুত্র। তিনি ১৯১৮ সালে মারা যান।

এছাড়াও এরদোগান সুলতান আব্দুল হামিদ সম্পর্কে ‘বিদ্বেষপরায়ণ’ দৃষ্টি পোষণকারীদেরও কঠোর সমালোচনা করেন।

তিনি বলেন, ‘কিছু লোক জোর করেই আমাদের দেশের ইতিহাস ১৯২৩ সাল থেকে শুরু করার চেষ্টা করেন। তারা আমাদের শিকড় এবং প্রাচীন মূল্যবোধ থেকে আমাদের বিরত রাখতে তাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন।’

এরদোগান বলেন, ‘কোনো ধরনের বৈষম্য ছাড়াই আমরা আমাদের ইতিহাস নিয়ে গর্ববোধ করি।

সূত্র: হুরিয়েত ডেইলি নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.